সকাল ৭:৪২,   বুধবার,   ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং,   ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ,   ৪ঠা জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী

বিক্রি বাড়ছে, আছে চ্যালেঞ্জও

অনলাইন ডেস্ক::
গাড়ি বিক্রি বাড়ছে, আর এতে বাড়ছে গাড়িনির্মাতাদের লাভের অঙ্ক। তবে এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আরও কিছু চ্যালেঞ্জও। যেমন দ্রুত প্রযুক্তি বদলে যাওয়া ও পরিবেশ বিপর্যয়ের হুমকি। এগুলো মাথায় রেখেই নতুন পরিকল্পনা ঠিক করছে গাড়ি নির্মাণপ্রতিষ্ঠানগুলো।

ভারতের উত্তর প্রদেশের গ্রেটার নয়ডায় ‘অটো এক্সপো: দ্য মোটর শো ২০১৮’ শীর্ষক প্রদর্শনীতে অংশ নিতে এসে এমনটাই জানাল বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় গাড়িনির্মাতা কোম্পানিগুলো। প্রদর্শনীটির আয়োজন করেছে সোসাইটি অব ইন্ডিয়ান অটোমোবাইল ম্যানুফ্যাকচারার্স (সিয়াম)।

বড় বাণিজ্যিক ও ব্যক্তিগত ব্যবহারের গাড়ি, মোটরসাইকেলসহ প্রায় সব ধরনের গাড়ি তৈরির ২০০ প্রতিষ্ঠান এই প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে স্বাগতিক ভারতের টাটা, মারুতি, মহেন্দ্র, টিভিএস, হিরোসহ মার্সিডিজ বেঞ্জ, বিএমডব্লিউ, টয়োটা, হোন্ডা, ইয়ামাহার মতো নামীদামি বহুজাতিক গাড়ি কোম্পানি রয়েছে। তবে কেবল সেই সব বিদেশি কোম্পানিই প্রদর্শনীটিতে এসেছে, যাদের কারখানা আছে ভারতে। এ ছাড়া এই খাতের অন্যান্য কোম্পানিও তাদের পণ্য ও সেবা নিয়ে প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছে।

প্রদর্শনীটি আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে আজ বৃহস্পতিবার। তবে এর আগে গতকাল বুধবার থেকে কোম্পানিগুলো একে একে তাদের নতুন নতুন গাড়িগুলো সাংবাদিকদের সামনে হাজির করতে শুরু করেছে। তারা নতুন নতুন মডেলের গাড়ির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার করছে, তুলে ধরছে তাদের ব্যবসায়ের বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা।

গতকাল দিনের শুরুটা হয় ভারতীয় গাড়ি নির্মাণপ্রতিষ্ঠান মারুতির প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে। এর পরের ব্রিফিংয়ে হোন্ডা মোটর করপোরেশনের প্রেসিডেন্ট তাকাহিরো হাচিগো দ্বিতীয় প্রজন্মের হোন্ডা অ্যামেজ গাড়ির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার ঘোষণা করেন। তিনি জানান, গত বছর বিশ্বজুড়ে তাঁরা ৫৩ লাখ গাড়ি বিক্রি করেছেন, যা আগের বছরের চেয়ে ১৬ শতাংশ বেশি।

তাকাহিরো হাচিগো বললেন, শুধু বিক্রি বাড়ানো নয়, একই সঙ্গে পরিবেশের বিষয়টিও তাঁরা মাথায় রাখছেন নতুন মডেল তৈরির ক্ষেত্রে। গাড়ি তৈরি করলেও তাঁরা চান একটি কার্বনমুক্ত সমাজ। এ জন্য দূষণ কম করে এমন প্রযুক্তি ব্যবহারে ঝুঁকছেন তাঁরা। তাই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাও ব্যবহার করা হচ্ছে।

পরিবেশের কথা চিন্তা করে অনেক কোম্পানি ইলেকট্রিক গাড়িও নিয়ে এসেছে প্রদর্শনীতে। এর মধ্যে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ইলেকট্রিক সুপার কার এনেছে রেনাল্ট ইন্ডিয়া। আর টাটা মোটরস উপস্থাপন করেছে বড় একটি যাত্রীবাহী ইলেকট্রিক বাস।

চার চাকার বাণিজ্যিক যান ও ব্যক্তিগত গাড়ির (প্রাইভেট কার) পাশাপাশি দুই চাকার গাড়ি তথা মোটরসাইকেল তৈরির বড় বড় কোম্পানি যেমন হোন্ডা, বাজাজ, টিভিএস, ইয়ামাহা ও সুজুকির মতো কোম্পানিগুলো নতুন নতুন মডেলের গাড়ি নিয়ে এসেছে এই প্রদর্শনীতে।

সুজুকি মোটর করপোরেশনের নির্বাহী মহাব্যবস্থাপক মাসাহিরো নিশিকাওয়া বলেন, দুই চাকার গাড়ির ক্ষেত্রে ভারত শুধু বড় বাজার নয়, এটি দ্রুত বর্ধমান গ্রাহকের দেশও। সে জন্য সুজুকি মোটর ভবিষ্যতে ভারতেই দেখছে সবচেয়ে বড় সম্ভাবনা।

ভারতে প্রথম ২০০ সিসির অ্যাডভেঞ্চার মোটরসাইকেল দ্য এক্সপালসের প্রিমিয়ারের ঘোষণা দিয়েছে হিরো। কোম্পানিটির চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী পবন মুনজাল বলেন, ‘আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের আকাঙ্ক্ষা পূরণ করতে পারবে এমন প্রযুক্তি উদ্ভাবনেই আমরা কাজ করছি।’

তবে মোটরসাইকেলের নির্মাতাদের প্রায় সবাই জানালেন ভারতে স্কুটি বিক্রির হার দ্রুত বাড়ছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত আরও ১৫-২০টি কোম্পানি প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে তাদের নতুন নতুন মডেলের গাড়ি কিংবা মোটরসাইকেল প্রিমিয়ার বা উপস্থাপন করবে। এরপর দুপুর নাগাদ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদর্শনীটির উদ্বোধন ঘোষণা করা হবে। তবে সর্বসাধারণের জন্য প্রদর্শনীর দরজা খোলা হবে কাল শুক্রবার।

প্রদর্শনীর প্রথম দিনের প্রথম ভাগ নির্দিষ্ট থাকবে বাণিজ্যিক প্রতিনিধিদের জন্য। এরপর ১৪ ফেব্রুয়ারি প্রদর্শনী শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত বিভিন্ন কোম্পানির শুভেচ্ছাদূত হিসেবে প্রদর্শনী ঘুরে বিভিন্ন কোম্পানির নতুন মডেলের গাড়ির প্রচার করে যাবেন বলিউডের অক্ষয় কুমার, জন আব্রাহাম ও তাপসী পান্নু এবং ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীরের মতো তারকারা।

সংবাদটি আপনার ভালো লাগলে লাইক, শেয়ার ‍দিন-