রাত ১:২৪,   রবিবার,   ২১শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং,   ৮ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ,   ২রা জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্রের এই ইউটিউব তারকা কেন আলোচিত?

অনলাইন ডেস্ক ::
জাপানের আওকিগাহারা বনে সম্প্রতি বন্ধুদের নিয়ে ঘুরতে বেরিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ২২ বছর বয়সী ইউবটিউব তারকা লগান পল। সেখানে মাউন্ট ফুজির পাদদেশে দৃশ্যত আত্মহত্যা করা এক ব্যক্তির লাশের ছবি পোস্ট করে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে পােস্ট করেন তিনি। গত রোববার আপলোড করে সরিয়ে নেওয়ার আগ পর্যন্ত লাখ লাখ দর্শক দেখে ভিডিওটি। এ নিয়ে ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে শুরু হয় তুমুল আলোচনা। আর এর মধ্য দিয়ে ইতিমধ্যে ইউটিউবে জনপ্রিয় পল আরো পরিচিত হন বৈশ্বিক পরিসরে।

তবে বিপুল দর্শকের দেখা ভিডিওটির কারণে বিপাকেও পড়তে হয়েছে লগান পলকে। কেউ কেউ তাঁর এই কাজকে ‘অসম্মানজনক’ ও ‘ঘৃণ্য’ বলে অভিহিত করেছেন। আর এতে প্রচণ্ড অনুশোচনায় ভুগছেন এই যুবক। এ নিয়ে তিনি মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করেন।

ওই ভিডিওতে পল বলেন, তিনি শোকে ও আতঙ্কে বিপৎগামী হয়েছিলেন। নিজেকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে দেখেছেন, যা তিনি করেছেন, তা ক্ষমার অযোগ্য।

ক্ষমা চেয়ে পোস্ট করা ভিডিওতে পল আরো বলেন, ‘কখনোই ওই ভিডিওটি পোস্ট করা উচিত হয়নি আমার। ওই সময় আমার ক্যামেরা নিচে রেখে রেকর্ডিং বন্ধ করে দেওয়া উচিত ছিল। এ কাজের জন্য আমি লজ্জিত ও হতাশ।’

লগান পলের ইউটিউব চ্যানেলে দেড় কোটি সাবস্ক্রাইবার রয়েছে। সেই চ্যানেলে আপলোড করা ভিডিওতে দৃশ্যত আত্মহত্যা করা একজনের মৃতদেহ আবিষ্কারের পর ভয়ার্ত অবস্থায় দেখা যায় পলকে। তিনি লাশ নিয়ে ঠাট্টাও করেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ১৫ মিনিটের ওই ভিডিটি জাপানে যাওয়া মার্কিন ভিলগারদের ভিডিও সিরিজের একটি অংশ ছিল। তারা জঙ্গলে ভুতুড়ে কিছু দেখানোর উদ্দেশ্যে ভিডিওটি ধারণ করছিল।

উন্নত দেশগুলোর মধ্যে জাপানে আত্মহত্যার হার সর্বোচ্চ। আত্মহত্যার স্থান হিসেবে কুখ্যাত আওকিগাহারা বন। মৃত্যুকূপ হিসেবে পরিচিতি এলাকাটিতে কতসংখ্যক লোক আত্মহত্যা করে, তা প্রকাশ করে না জাপান সরকার।

সংবাদটি আপনার ভালো লাগলে লাইক, শেয়ার ‍দিন-